Home / প্রযুক্তি / কম্পিউটার / যে ২২টি বিষয় সকল ল্যাপটপ ব্যবহারকারীর জানা প্রয়োজন

যে ২২টি বিষয় সকল ল্যাপটপ ব্যবহারকারীর জানা প্রয়োজন

ল্যাপটপ এখন অনেকে ব্যবহার করে থাকেন। এর ব্যবহারকারীর সংখ্যাও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অফিস, বাসা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তিগতভাবে ল্যাপটপের ব্যবহার চোখে পড়ার মতো। এটি সহজ বহনযোগ্য, অনেকটা ভঙ্গুর প্রকৃতির এবং সৌখিনও বটে।  সাধারণভাবে এটি ডেক্সটপ কম্পিউটারের চেয়ে দামি। চাপ, তাপ, ধূলা-বালি, পানীয় দ্রব্য ইত্যাদি ল্যাপটপের শত্রু। অযত্ন, অবহেলা, অসতর্কতা হলে ল্যাপটপ দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে। একবার নষ্ট হলে এর রিপেয়ারিং খরচও তুলনামূলকভাবে বেশি। তাই ল্যাপটপ ব্যবহারে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। ল্যাপটপকে দ্রুত নষ্ট হতে না দিতে চাইলে নিচের বিষয়গুলো মনে রাখা প্রয়োজন-

১. গরম পরিবেশ বা স্থান হতে ল্যাপটপ দূরে রাখুন। ল্যাপটপ যেন অত্যধিক তাপ বা গরম না হয় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে।
২. ল্যাপটপ রাখার স্থানে পানি, চা, কফি কাপ কিংবা খাবার রাখবেন না। এগুলো হতে ল্যাপটপকে দূরে রাখুন। ল্যাপটপে পানি পড়ে গেলে সমস্যা হতে পারে। কিংবা খাবার পেয়ে পিঁপড়া  এসে ল্যাপটপে বাসা বাঁধতে পারে।
৩. ধূলা-বালি ল্যাপটপের শত্রু। তাই ধূলা-বালি হতে ল্যাপটপকে দূরে রাখুন। ব্যবহার শেষে ল্যাপটপ খোলা না রেখে ডিসপ্লে স্ক্রীণটি বন্ধ করে রাখুন। ব্যবহার শেষে কীবোর্ডের উপর পাতলা প্লাস্টিক দিয়ে ঢেকে রাখতে পারেন।
৪. ল্যাপটপকে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখতে বা বেশি গরম হতে না দিতে চাইলে ‘ল্যাপটপ কুলার’ ব্যবহার করুন।
৫. ল্যাপটপ ব্যবহারের সময় খেয়াল রাখুন যেন এর কী বোর্ডের উপর পেনসিল, রাবার, হেড ফোন বা ছোট কোনো কিছু পড়ে না থাকে। কারণ ডিসপ্লে স্ক্রীণ বন্ধ করার সময় তা স্ক্রীণে লেগে স্ক্রীণ ছিদ্র হতে পারে।
৬. দূর্বল সকেটে ল্যাপটপের প্লাগ লাগাবেন না। মূল পাওয়ার সকেট হলে ভালো কিংবা ভালো মানের পাওয়ার এক্সটেনশন ব্যবহার করুন।
৭. পরিষ্কার হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করুন। খেতে খেতে ল্যাপটপ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। কারণ এতে খাবার ল্যাপটপের ভিতর ঢুকতে পারে এবং পরে পিঁপড়া বাসা বাঁধতে পারে।
৮. ল্যাপটপকে মাঝে মাঝে ব্যাটারীতে চালানো ভালো। লোডশেডিং অবশ্য সেই সুযোগটি করে দেয়। ল্যাপটপের ব্যাটারীর চার্চ ৫০% এর নিচে মাঝে-মধ্যে আনা ভালো। এতে ব্যাটারীর পারফরম্যান্স ভালো থাকে। তবে খুব বেশি ব্যাটারীতে ব্যবহার করা উচিৎ নয়।
৯. ডিসপ্লে স্ক্রীণ ধরে কখনও ল্যাপটপ উঠাবেন না বা স্থানান্তর করবেন না।
১০. ল্যাপটপের তার যেন মূভিং চেয়ার বা চেয়ারের নিচে পড়ে না যায়।
১১. ল্যাপটপের কী বোর্ডে খুব জোরে চাপ দিবেন না বা চাপ দিয়ে লিখবেন না। এতে কী বোর্ড দ্রুত নষ্ট হতে পারে।
১২. সাবধানতার সাথে ইউএসবি অ্যাকসেসরিজগুলো তার নির্ধারিত স্থানে বা পোর্টে লাগান। খুব জোরে চাপ না দিয়ে হালকাভাবে পোর্টে লাগান।
১৩. ডিভিডি ট্রে সাবধানে বের করতে হবে এবং সঠিক এ্যাঙ্গেলে তা ঢুকাতে হবে এবং সিডি বা ডিভিডিটি ঠিকমতো বসেছে কিনা তা নিশ্চিত করুন।
১৪. মাঝে মাঝে ল্যাপটপটি বিশেষত এর কী বোর্ড এবং এর স্ক্রীণ পরিষ্কার করুন। কী বোর্ড পরিষ্কারের জন্য হালকা ব্রাশ এবং ডিসপ্লে স্ক্রীণ জন্য এলসিডি ক্লীনার ব্যবহার করুন। নরম সূতি কাপড় এর স্ক্রীণ মুছার জন্য ব্যবহার করুন। পানি দিয়ে স্ক্রীণ পরিষ্কার করা থেকে বিরত থাকুন। তবে প্রথমে স্ক্রীণের ধূলা-বালি নরম কাপড় দিয়ে আলতোভাবে মুছে নিন। তবে একান্ত প্রয়োজন হলে পানি কাপড়ে নিয়ে তা ভালোভাবে চিপে ফেলে দিয়ে পরিষ্কার করুন।
১৫. ল্যাপটপের উপর কোনো কিছু রাখবেন না। কারণ এতে এলসিডি বা ডিসপ্লে স্ক্রীণ চাপ পড়ে নষ্ট হতে পারে।
১৬. ভালো ল্যাপটপ ব্যাগ বা কেস ব্যবহার করে ল্যাপটপ অন্যত্র বহন করুন।
১৭. ভালো বাতাস বা ভেনিটলেশন আছে এমন স্থালে ল্যাপটপ রাখুন। আলমারীর বা বাক্সের মধ্যে কোনো কাপড়, পলিথিন  বা অন্য কিছুর সাথে মুড়িয়ে ল্যাপটপ রাখবেন না। এতে ডিসপ্লে স্ক্রীণ কালো কালো স্পট হয়ে যেতে পারে।
১৮. ল্যাপটপের ফ্যান যেখান দিয়ে গরম বাতাস বের করে সেখানে কোনো ময়লা বা ধূলা-বালি আছে কিনা তা দেখুন। থাকলে তা নরম ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করুন।
১৯. সমতল স্থানে ল্যাপটপ রেখে ব্যবহার করুন। অনেকে পায়ের উপর রেখে ব্যবহার করে থাকে। এতে ল্যাপটপ পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে এবং ল্যাপটপের গরম তাপ বের হতে বাধাপ্রাপ্ত হয়।
২০. বিছানায় ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে ল্যাপটপ তাড়াতাড়ি গরম হয় এবং ল্যাপটপের ভেতরের ফ্যান নিচের বাতাস টানতে না পারলে ফ্যান বন্ধ বা নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
২১. শিশুদের থেকে ল্যাপটপ দূরে রাখুন। প্রয়োজনে শিশুদের সাথে নিয়েই ল্যাপটপ ব্যবহার করুন। ল্যাপটপ দিয়ে একা ছেড়ে দিবেন না।
২২. ল্যাপটপ প্রায়শঃ বা প্রত্যহ ব্যবহার করার চেষ্ট করতে হবে। দুই-তিন সপ্তাহ কিংবা এক মাস পর মাঝে মাঝে ল্যাপটপ ব্যবহার করলে ল্যাপটপ তাড়াতাড়ি নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অর্থাৎ দীর্ঘ সময় পর পর হঠাৎ ল্যাপটপ ব্যবহার করলে ল্যাপটপ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যদি এমনটি করতেই হয় তবে ল্যাপটপে পাওয়ার ক্যাবল কানেক্ট করে বেশ কিছুক্ষণ পর ল্যাপটপ চালু করুন। কিংবা ল্যাপটপের ভেতরের আর্দ্রতা শুকাতে ছায়াময় স্থানে ল্যাপটপটি কিছুক্ষণ ডিসপ্লে ওপেন করে রাখুন যাতে সূর্যের হালকা তাপ  এতে লাগে এবং এর ভেতরের আর্দ্রতা শুকায়।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*