Home / রান্নাঘর / টিপস / ফ্রিজে রাখা খাবারের খাদ্যগুণ বজায় রাখার কৌশল

ফ্রিজে রাখা খাবারের খাদ্যগুণ বজায় রাখার কৌশল

ফ্রিজ সঠিকভাবে ব্যবহার না করলে এতে রাখা খাবারের গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়। এক খাবারের গন্ধ অন্য খাবারে লেগে গন্ধ সৃষ্টি করে। খাবার বেশি দিন ভালো থাকে না এবং তা দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই ফ্রিজের খাবারের গুণাগুণ বজায় রাখার কয়েকটি উপায় দেওয়া হলোঃ
১.  ফ্রিজের নির্দেশনা অনুযায়ী ফ্রিজের তাপমাত্রা ঠিক করা আছে কিনা তা দেখে নিন। ফ্রিজের ম্যানুয়াল বা ফ্রিজের গায়ে লাগানো স্টিকার দেখে তাপমাত্রা ঠিক করে খাবার রাখুন।
২. গরম খাবার ফ্রিজে রাখবেন না। এমনকি হালকা/উষ্ণ গরম খাবারও ফ্রিজে রাখবেন না। খাবার আগে বাইরে স্বাভাবিকভাবে ঠান্ডা করে নিতে হবে তারপর ফ্রিজে রাখতে হবে। অন্যথায় ফ্রিজের ভিতরের তাপমাত্রা বাড়বে এবং বিদ্যুৎ খরচ বেড়ে যাবে।
৩. ফল-মূল, শাক-সবজি ফ্রিজের বক্সের মধ্যে রাখুন। এগুলো যেন শুকিয়ে না যায় সে জন্য পরিবেশবান্ধব র‌্যাপিং পেপার অথবা ভালোমানের পলিব্যাগ দিয়ে মুড়িয়ে বক্সের মধ্যে রাখুন। বক্স না থাকলে কোনো বক্সের বাইরে রাখলে র‌্যাপিং পেপার অথবা ভালোমানের পলিব্যাগ দিয়ে মুড়িয়ে রাখুন। কোনো কিছু দিয়ে মুড়িয়ে না রাখলে এর গুণাগুণ দ্রুত নষ্ট হয়।
৪. শাক-সবজি ও সীম/বিন জাতীয় যেসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে পানি ধারণ করে সেগুলো ফ্রিজের ভেতরের সেই স্থানে রাখুন যেখানে বরফ জমে না।
৫. কাঁচা মাংস ফ্রিজে জমাটবদ্ধ করে রাখলে তার পুষ্টিগুণ বজায় রাখতে সাহায্য করে। এ জন্য তা ডিপে রাখতে হবে।
৬. ফ্রিজে খাবারগুলো এমনভাবে রাখতে হবে যাতে খাবারগুলোর মধ্যে কিছুটা ফাঁকা জায়গা থাকে এবং ঠান্ডা হওয়া ভালোভাবে চলাচল করতে পারে।
৭. ফ্রিজের ভিতর যত বেশি খাদ্যদ্রব্য রাখা হবে খাবার নষ্ট হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আঁটাআটি করে মাত্রারিক্ত খাবার রাখবেন না।
৮. ফ্রিজের দরজা যত বেশি খোলা হবে এবং দরজা খোলা যতবেশিক্ষণ থাকবে ততবেশি বিদ্যুৎ খরচ হবে। সাথে সাথে খাবার নষ্ট হবার সম্ভাবনা থাকে।
৯. রান্নাকরা খাবার সবসময় ফ্রিজের মধ্যে ঢেকে রাখুন। ফ্রিজের খাবারগুলো সুন্দরভাবে ঢেকে রাখতে হবে যেন খাবার শুকিয়ে না যায় এবং এক খাবারের গন্ধ অন্য খাবারে লেগে দুর্গন্ধময় না হয়।
১০. অতিরিক্ত ঘ্রাণযুক্ত খাবার, ফল-মূল ফ্রিজে সংরক্ষণ করা উচিৎ নয়।
১১. মাছ/মাংস ফ্রিজে ৩ মাসের অধিক সময় রেখে ব্যবহার করা উচিৎ নয়। কারণ ধীরে ধীরে এর গুণাগুণ নষ্ট হতে শুরু করে।
১২. শাক-সবজি পূর্ণ গুণাগুণ ও স্বাদ পেতে হলে তা ৫-৬ দিনের মধ্যে ব্যবহার করুন।
১৩. ফ্রিজের ডিপ চেম্বারে মাছ/মাংস একে বারে সব পরিপূর্ণ না করে ধাপে ধাপে আধা ঘন্টা পরপর তা রাখা উত্তম। আলাদা আলাদা করে প্যাকিং করে রাখলে পরে তা প্রয়োজন মতো বের করতে সুবিধা হয়।

ফ্রিজ সঠিকভাবে ব্যবহার না করলে এতে রাখা খাবারের গুণাগুণ নষ্ট হয়ে যায়। এক খাবারের গন্ধ অন্য খাবারে লেগে গন্ধ সৃষ্টি করে। খাবার বেশি দিন ভালো থাকে না এবং তা দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই ফ্রিজের খাবারের গুণাগুণ বজায় রাখার কয়েকটি উপায় দেওয়া হলোঃ ১.  ফ্রিজের নির্দেশনা অনুযায়ী ফ্রিজের তাপমাত্রা ঠিক করা আছে কিনা তা দেখে নিন। ফ্রিজের ম্যানুয়াল বা ফ্রিজের গায়ে লাগানো স্টিকার দেখে তাপমাত্রা ঠিক করে খাবার রাখুন। ২. গরম খাবার ফ্রিজে রাখবেন না। এমনকি হালকা/উষ্ণ গরম খাবারও ফ্রিজে রাখবেন না। খাবার আগে বাইরে স্বাভাবিকভাবে ঠান্ডা করে নিতে হবে তারপর ফ্রিজে রাখতে হবে। অন্যথায় ফ্রিজের ভিতরের তাপমাত্রা বাড়বে এবং…

Review Overview

User Rating: Be the first one !

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*